Home / মিডিয়া নিউজ / মিডিয়ার অনুমতি নিয়ে কারো শয্যাসঙ্গিনী হতে হবে নাকি: আরশি

মিডিয়ার অনুমতি নিয়ে কারো শয্যাসঙ্গিনী হতে হবে নাকি: আরশি

কিছুদিন পর পর নানা ঘটনা নিয়ে বিতর্ক তৈরি করেই যিনি আলোচনায় এসেছেন, তিনি মডেল-অভিনেত্রী

আরশি খান। গত দুই-তিন বছরে ছোট পর্দার দর্শকের কাছে পরিচিত হয়ে উঠেন তিনি। এরপর

‘বিগ বস’-এর দুই সিজনে অংশ নেওয়ার পর থেকে তাকে সবাই এক নামেই চেনেন। কিন্তু এরচেয়েও বেশি পরিচিতি

পেয়েছেন নানারকম মন্তব্য করে। বারবারই নানা মন্তব্য করে বিতর্কে জড়িয়ে পড়েন তিনি। সেটাই যেন তার হাতিয়ার।

সম্প্রতি এক দুর্ঘটনার শিকার হয়েছেন আরশি খান। দিল্লির মালব্য নগরের শিবালিক রোড-এ তার গাড়ি দুর্ঘটনার কবলে পড়ে। প্রাণে বেঁচে গেলেও তিনি বুকে আঘাত পেয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। গাড়িতে তার এক সহযোগীও ছিলেন। তিনিও আঘাত পেয়েছেন। দু’জনকেই দিল্লির একটি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।

আরশি মুম্বাইয়ের টেলি-জগতের পরিচিত মুখ। মুম্বাইয়ের টেলি-জগতের পরিচিত মুখ হলেও তিনি এ দেশে জন্মাননি। তিনি প্রকৃতপক্ষে আফগানিস্তানের মেয়ে। চার বছর বয়সে আফগানিস্তান থেকে মা-বাবার সঙ্গে ভারতে চলে আসেন । তারপর মধ্যপ্রদেশের ভোপালেই তার বেড়ে ওঠা। মডেলিং এবং তারপর অভিনয়ের দিকে ঝোঁকার আগেই তিনি নিজের পড়াশোনা সম্পূর্ণ করেছিলেন ভোপাল থেকে। অনেকেই জানেন না, আরশি একজন পেশাদার ফিজিওথেরাপিস্ট।

‘দ্য লাস্ট এম্পেরর’ নামে একটি হিন্দি ছবিতে বলিউডে অভিষেক হয় তার। একটি তামিল ছবিতেও কাজ করেছেন। মুম্বাইয়ে পা রেখে মডেলিং এবং অভিনয় জগতে পা দেওয়ার পর থেকেই বিতর্কে নিজেকে জড়িয়ে নিয়েছেন তিনি।

২০১৫ সালে পাক ক্রিকেটার শাহিদ আফ্রিদির সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক রয়েছে বলে দাবি করে বিতর্কে জড়ান আরশি। টুইটারে তিনি লিখেছিলেন, ‘আফ্রিদির সঙ্গে আমার শারীরিক সম্পর্ক হয়েছে। কার শয্যাসঙ্গিনী হব, সে ব্যাপারে ভারতীয় মিডিয়ার অনুমতি নিতে হবে নাকি? এটা আমার ব্যক্তিগত ব্যাপার। আমার কাছে সম্পর্কটা ছিল ভালোবাসার।’

এর মাস খানেক পর টুইটে আরও এক বিস্ফোরণ ঘটান আরশি। তিনি দাবি করেন, তার গর্ভে রয়েছে আফ্রিদির সন্তান। তিনি টুইট করেছিলেন, ‘প্রেমিক হিসাবে আফ্রিদি ১০০-তে ১০০ পাবে। বিছানাতেও দারুণ। আর মাত্র ছ’মাস। তার পর আমি আফ্রিদির সন্তানের জন্ম দেব।’ ২০১৬ সালে এই টুইট করেছিলেন তিনি। সন্তানের জন্ম দেওয়ার খবর অবশ্য ২০২১ সালেও প্রকাশিত হয়নি।

বিতর্কই তাকে প্রচারে রেখেছে বরাবর। একবার সালমান খানের জন্য নগ্ন হওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করে নিজের সাহসী ছবি টুইটারে পোস্ট করেছিলেন। তাতে সালমানকে ট্যাগ করে লিখেছিলেন, ‘এটা আমার ডার্লিংয়ের জন্য।’

এরপর ২০১৬ সালে ফের আরও এক বিতর্ক নিয়ে হাজির হন তিনি। দেহব্যবসায় জড়িত থাকার অভিযোগে পুণের একটি চারতারা হোটেলের ঘর থেকে আরশিকে গ্রেপ্তার করে পুণে সিটি ক্রাইম ব্র্যাঞ্চ। যদিও আরশির দাবি ছিল, তিনি সম্পূর্ণ নির্দোষ।

তার নাকি সবটাই মিথ্যা, সাজানো। এ রকম অভিযোগ করেছিলেন ভোপালের মডেল-অভিনেত্রী গহনা বশিষ্ট। বয়স থেকে শিক্ষাগত যোগ্যতা, নিজের সম্পর্কে সব কিছুই মিথ্যে বলেছেন আরশি, দাবি করেন তিনি। সেই দাবির সত্যাসত্য অবশ্য জানা যায়নি।

শরীরে ভারত এবং পাকিস্তানের পতাকা একেও বিতর্কে জড়িয়েছেন তিনি। বিকিনির সঙ্গে হিজাব পরে ছবি পোস্ট করেও সমালোচিত হয়েছেন। বিতর্কের সঙ্গে পা মিলিয়ে চলতে পছন্দ করেন আরশি। ইন্ডাস্ট্রিতে আসার পর থেকেই তাই বিতর্ককে নিজের সঙ্গী বানিয়ে নিয়েছেন। নেতিবাচক জনপ্রিয়তাকেই যেন তার সাফল্যের সিঁড়ি বানিয়ে নিয়েছেন তিনি।

Check Also

বন্ধ হচ্ছে একের পর এক কলকাতার সিরিয়াল” জেনে নিন কেন;

গত কয়েক দিনে কলকাতার একাধিক বাংলা সিরিয়াল শেষ হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। শ্রীকৃষ্ণভক্ত মীরা, সাঁঝের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Recent Comments

No comments to show.