Home / মিডিয়া নিউজ / ‘মিশন এক্সট্রিম’ ইউরোপেও

‘মিশন এক্সট্রিম’ ইউরোপেও

দর্শকদের আগ্রহ দিন দিন বেড়েই চলছে। আর মাত্র দুই সপ্তাহ পরই দীর্ঘ প্রতীক্ষিত সিনেমা ‘মিশন এক্সট্রিম’

আসছে প্রেক্ষাগৃহে। আগামী ৩ ডিসেম্বর দেশ ও বিশ্বের বহু দেশে একযোগে সিনেমাটি মুক্তি পেতে যাচ্ছে।

এর আগে বিশ্বের তিনটি মহাদেশে সিনেমাটি মুক্তির বিষয় নিশ্চিত হয়েছিল। এবার যুক্ত হলো চতুর্থ মহাদেশ।

ইউরোপেও মুক্তি পেতে যাচ্ছে পুলিশ অ্যাকশন থ্রিলার সিনেমাটি। কপ ক্রিয়েশনের এই সিনেমা ইংল্যান্ড,

ফ্রান্স, আয়ারল্যান্ড এবং স্কটল্যান্ডে ৩ ডিসেম্বর একই দিনেই মুক্তি পাবে।

প্রথমবারের মতো সেন্সরশিপ নিয়ে ইংল্যান্ড, আয়ারল্যান্ড এবং স্কটল্যান্ডে বাংলাদেশি কোনো সিনেমা আনুষ্ঠানিকভাবে মুক্তি পেতে যাচ্ছে। এসব দেশে সিনেমাটি দেখা যাবে বিখ্যাত সব মাল্টিপ্লেক্সে। যুক্তরাজ্যের পরিবেশনায় দায়িত্বে রয়েছে রিভেরী ফিল্ম বিডি আর ফ্রান্সে পরিবেশনা করছে লা পয়েন্ট মাল্টিমিডিয়া প্যারিস।

সিনেমাটির অন্যতম পরিচালক ও প্রযোজক সানী সানোয়ার জানান, এই তালিকায় কিছুদিনের মধ্যে যুক্ত হবে সুইজারল্যান্ড, ইতালি, পর্তুগাল, ডেনমার্ক, সুইডেনসহ আরও কয়েকটি ইউরোপীয় দেশ। এ বিষয়ে আলোচনা অনেক দূর এগিয়েছে।

এর আগে ঢাকার দর্শকদের সঙ্গে একই সময়ে নিউইয়র্ক, সিডনি এবং ওয়েলিংটনের প্রেক্ষাগৃহেও প্রবাসীরা এই সিনেমাটি দেখতে পাবেন বলে জানানো হয়। যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড ছাড়া আরও ১১টি দেশে ‘মিশন এক্সট্রিম’ মুক্তির বিষয়টি নিশ্চিত করেছে প্রযোজনা সংস্থা কপ ক্রিয়েশন।

অচিরেই সিনেমাটি বিশ্বব্যাপী মুক্তির চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করা হবে বলেও জানান এর অপর পরিচালক ফয়সাল আহমেদ।

‘মিশন এক্সট্রিম’র কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন অভিনেতা আরিফিন শুভ। তিনি বলেন, ‘বিশ্ব সিনেমার আধুনিকতার দৌড়ে ‘মিশন এক্সট্রিম’ দেশীয় সিনেমার পক্ষে একটি শক্ত প্রতিনিধি। তাই পৃথিবীর নানা প্রান্তে বসবাসকারী প্রবাসীরা বুকে গর্ব নিয়ে সিনেমাটি দেখার জন্য মুখিয়ে আছে। এটা তাদের দেশপ্রেম। রেসপেক্ট।’

কপ ক্রিয়েশনের ব্যানারে নির্মিত সিনেমার অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে আছেন তাসকিন রহমান, জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশী, সাদিয়া নাবিলা, সুমীত সেনগুপ্ত, রাইসুল ইসলাম আসাদ, ফজলুর রহমান বাবু, শতাব্দী ওয়াদুদ, মনোজ প্রামাণিক, ইরেশ যাকের, মাজনুন মিজান, সুদীপ বিশ্বাস, সৈয়দ আরেফ, রাশেদ খান অপু, দীপু ইমাম, এহসানুর রহমান, ইমরান সওদাগর প্রমুখ।

কুল নিবেদিত ‘মিশন এক্সট্রিম’ পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট (সিটিটিসি)-এর কিছু শ্বাসরুদ্ধকর অভিযান থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে নির্মাণ করা হয়েছে। কাহিনী, চিত্রনাট্য ও সংলাপ লিখেছেন পুলিশের এন্টি টেররিজম ইউনিটের পুলিশ সুপার সানী সানোয়ার। এর সহযোগী প্রযোজক হিসেবে রয়েছে মাইম মাল্টিমিডিয়া ও ঢাকা ডিটেকটিভ ক্লাব।

উল্লেখ্য, ‘মিশন এক্সট্রিম’ ও ‘মিশন এক্সট্রিম-২’র মধ্যে প্রথম পর্ব মুক্তি পেতে যাচ্ছে ৩ ডিসেম্বর। পরবর্তী সময়ে স্বল্প সময়ের ব্যবধানে দ্বিতীয় খণ্ড মুক্তি দেওয়া হবে বলে জানা গেছে।

Check Also

বন্ধ হচ্ছে একের পর এক কলকাতার সিরিয়াল” জেনে নিন কেন;

গত কয়েক দিনে কলকাতার একাধিক বাংলা সিরিয়াল শেষ হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। শ্রীকৃষ্ণভক্ত মীরা, সাঁঝের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Recent Comments

No comments to show.